All-in-One Portable PC – iLife Zed PC CX3 Review

0

আমাদের কাছে রয়েছে “i-Life Zed PC CX3” এটিকে আপনারা গরিবের “i Mac”  বলতেই পারেন। কারণ, এটিতে রয়েছে 21.05 Inch একটা মনিটর। এই মনিটরের মধ্যেই বিল্ডিং আছে একটা CPU এবং Battery, সাথে Wireless Keyboard and Mouse। মূল কথা হল আপনি এই PC থেকে একটা Laptop এর সকল সুবিধা গুলো পাবেন। এটি PC এবং Laptop দুটোই, কারণ এর মধ্যে battery এবং যাবতীয় সবকিছু Setup করা। 

এখন বর্তমানে এর মূল্য হচ্ছে ৪০,০০০৳ বাংলাদেশি টাকা। তবে এর Price টা Update হতে পারে। 

স্পেসিফিকেশন (Specification):

  • Processor: Intel Core i3-5005U Processor (3M Cache, 2.00 GHz)
  • RAM: 4 GB
  • Graphics Card: Intel Integrated HD 5500
  • Storage: 1 TB HDD
  • Monitor: 21.5 inch
  • Audio: 3.5 mm standard headphone jack
  • Network & Wireless: Connectivity Wifi 802.11 ac & Bluetooth 4.2
  • Operating System: Windows 10
  • Input Devices: Wireless Keyboard and Mouse
  • Warranty: Full 1 Year
  • Price: 40,000৳

ডিজাইন এবং বিল্ড (Design & Build):

আমাদের কাছে বেশি ভালো লেগেছে এর মনিটরটি, কারণ মনিটরটি খুবই Slim. তবে নিচের দিকটা একটু মোটা কারণ নিচের দিকে CPU, Battery, Hard Drive সহ যাবতীয় System গুলো রয়েছে।

আমাদের মনে হয়েছে এই Design চয়েসটা অনেক Smart ছিল। আর মনিটরটি যে স্ট্যান্ডের উপরে দাঁড় করানো, সেই স্ট্যান্ডটিও দেখতে খুব সুন্দর এবং খুব মজবুত। Unboxing করার পরে মাত্র দুইটা স্ক্রুর মাধ্যমে স্ট্যান্ডটি মনিটরের সাথে attach করতে পারবেন। 

সামনের দিকে মনিটরের Bezel গুলো অনেক Slim, নিচের দিকে ছোট্ট একটা Chin আছে যেখানে একটি Web Camera দেয়া হয়েছে। এছাড়া এর সামনের দিকে কোন LED Light System নেই, LED Light ব্যবহার করা হয়েছে শুধুমাত্র Power বাটনে এবং সেটা পিছনের দিকে।

বাটন এবং পোর্টস (Buttons and Ports):

এটাতে Ports রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে। দুইটা ফুল সাইজের 3.0-USB। তিনটা ফুল সাইজের 2.0-USB, একটা HDMI Port, একটা Ethernet Port, একটা Charging Port এবং দুইটা আছে 3.5 mm জ্যাক, একটা হচ্ছে মাইক্রোফোনের জন্য এবং অন্যটি হেডফোনের জন্য।

তবে Ports গুলো সব পিছনের দিকে তাই Access করা ঝামেলা মনে হতে পারে, তাই সুবিধার্থে একটা USB-2 Port, এবং একটা Micro SD-Card Reader নিচের দিকে দেয়া হয়েছে। এগুলো সামনে থেকে Access করতে পারবেন। 

সামনে থেকে দেখলে হাতের ডান পাশে Power Button এবং Restart Button। তার ঠিক পাশে রয়েছে Hard Disk এর স্থানটি। তবে Hard Disk দেখার জন্য কিংবা খোলার জন্য অথবা SSD Card লাগানোর জন্য উপরে রয়েছে একটি ঢাকনা, সেটা খুব Easy খোলা যায়।

পারফর্মেন্স (Performance):

এই PC তে Brain হিসেবে রয়েছে Intel core i3 5th Gen এর একটি Processor, 5005U যেটা Two core and Four Thread, যেটার 3M Cache এবং Clock speed 2.00 GHz সুতরাং এর Processor টি খুব একটি নতুন নয়। 

এটাতে RAM রয়েছে 4GB DDR3, Hard Drive ১ টেরা বাইট। আপনারা চাইলে এটা পরিবর্তন করে যেকোন অ্যামাউন্ট এর SSD ব্যবহার করতে পারেন। এবং কানেক্টেড এর জন্য Bluetooth, Wi-Fi দুই টাই রয়েছে। সাথে “Windows 10 Home” Genuine Version Install করা রয়েছে। আর সেই সাথে আপনি পাচ্ছেন “1 Year Warranty”, যেটা “i-life” এর নিজস্ব সার্ভিস সেন্টার থেকে দেওয়া হবে।

আপনি এই PC টি কিনে আনার পরে যদি একটি SSD লাগিয়ে নেন তাহলে এর Performance অনেক বেশি ভাল পাবেন। 

আপনারা যদি এই PC থেকে Official Job করতে চান যেমনঃ Microsoft-Office, Browsing, Email-Writing সহ অন্যান্য Official কাজগুলো চালিয়ে নিতে পারবেন কোন ধরনের Problem ছাড়া। এর বাইরেও আপনি Photoshop কিংবা Basic কাজগুলো চালিয়ে নিতে পারবেন। তবে Hard কাজগুলো করার ক্ষেত্রে একটু Hang কিংবা Slow হতে পারে। 

Video Edting তেমন করা যাবে না, Camtasia, Filmora এর মত Software গুলো দিয়ে মোটামুটি Video Edting করতে পারবেন। এবং এটাতে Gamse খেলার জন্য রিকমেন্ডেড থাকবে না, কারণ এটা Gaming পিসি না।

মনিটর (Monitor):

এই পুরো মনিটরটির ওজন হচ্ছে 3.05 KG। তার মানে আপনি চাইলে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে খুব সহজেই আনা নেয়া করতে পারবেন। এটা ল্যাপটপ এর মত ব্যবহার করতে পারবেন। 

মনিটরটি হচ্ছে 21.5 Inch Full HD Resolution এর একটি IPS Panel. IPS হওয়ার কারণে সবদিক দিয়ে ঠিক ছিল আমরা যে দিক থেকে খেয়াল করছিলাম পিকচার একদমই Perfect দেখা যাচ্ছিল। পর্যাপ্ত পরিমাণে Brightness, Despaticke, Coler গুলো আমাদের কাছে অনেক ভালো লেগেছে। এবং এর Video Experience খুব ভাল ছিল। সুতরাং আমরা বলব এই Price এর মধ্যে আপনার PC Biuild যা হওয়ার কথা তাতে “i-Life Zed PC CX3” নিতে পারেন। 

মাউস এবং কিবোর্ড (Mouse & Keyboard):

Wireless Mouse এবং Wireless Keyboard দুটোই বক্সের ভিতরে থাকবে মনিটরের সাথে। এবং সবচেয়ে সুবিধা হচ্ছে Mouse এবং Keyboard দুটোই একটা USB Dongle দিয়ে Access করতে পারবেন।

এখন যদি কোয়ালিটির কথা বলি সে ক্ষেত্রে কীবোর্ডটা আমাদের কাছে বেশ ভালো লেগেছে, কারণ কিবোর্ডের পুরো জায়গা জুড়ে Button রয়েছে কোনো ফাঁকা Space নেই এই কারণে দেখতে খুবই সুন্দর। বাটনগুলো খুব ভালো টাইপ করার জন্য। যেহেতু এটা Wireless Keyboard তাই Battery ব্যবহার করতে হবে।

মাউসটিও অনেক ভালো। মাউসটির বাটন গুলো খুব Smoothly কাজ করে। যেহেতু এটা Wireless Mouse তাই Battery ব্যবহার করতে হবে। তবে বড় Mouse ব্যবহার করার পরে এটা সবার কাছে একটু inconvenient মনে হতে পারে।  

ব্যাটারি (Battery):

এর ব্যাটারি হচ্ছে 5,000mAh “i-life” Company বলছে 3-Hours পর্যন্ত  Battery Backup দিবে Full Charg দিয়ে, তবে এটা আমরা যখন চেক করি তখন 2-Hours এর মত Battery Backup পেয়েছি। তবে Company হয়তো সিচুয়েশন ডিফারেন্ট অনুযায়ী কিছু বলেছে।

এই ছিল আমাদের আজকের “ i-Life Zed PC CX3 ” রিভিউ। আশা করি আমাদের রিভিউ-টি ভালো লেগেছে এবং ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানান আপনার মতামত এবং অবশ্যই এটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of